শ্রীলঙ্কাতে কাগজ সংকটে স্কুলের পরীক্ষা বন্ধ

গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কাগজ আমদানির মত যথেষ্ট তহবিল না থাকায় এই বিপদে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। ১৯৪৮ সালে স্বাধীনতার পর এখনই সবচেয়ে কঠিন অর্থনৈতিক সংকটের মোকাবেলা করতে হচ্ছে ভারত মহাসাগরের এই দ্বীপ দেশটিকে

শনিবার শ্রীলঙ্কার শিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়, কাগজের সংকট থাকায় আগামী সপ্তাহের পরের সপ্তাহে নির্ধারিত টার্ম টেস্ট বা মেয়াদী পরীক্ষা অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে।

এই সংকটের কারণে দেশের ৪৫ লাখ শিক্ষার্থীর দুই-তৃতীয়াংশই পরীক্ষা দিতে পারবে না বলে জানানো হয়েছে গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে।

দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশের শিক্ষা বিভাগ জানিয়েছে, পরীক্ষা নেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজ ও কালি আমদানি করার মত যথেষ্ট বৈদেশিক মুদ্রার তহবিল না থাকায় বিদ্যালয় অধ্যক্ষরা পরীক্ষা নিতে পারছেন না।

দুই কোটি ২০ লাখ জনসংখ্যার দেশটি এখন দেউলিয়াত্ব এড়াতে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) কাছে আর্থিক সহায়তা চেয়েছে। আইএমএফ শুক্রবার জানিয়েছে, তারা প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসের আবেদনটি বিবেচনা করে দেখছে।

বছরের শুরুতে শ্রীলঙ্কা তাদের ঘনিষ্ট মিত্র ও অন্যতম ঋণদাতা চীনের কাছে ঋণের কিস্তি মওকুফের আবেদন করেছিল, তবে এ বিষয়ে বেইজিংয়ের তরফ থেকে এখনও কোনো জবাব আসেনি

এ বছর কলম্বোকে প্রায় ৬৯০ কোটি ডলারের ঋণ পরিশোধ করতে হবে, অথচ ফেব্রুয়ারির শেষ নাগাদ তাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভে ছিল ২৩০ কোটি ডলারের মত।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, মৃত দুই ব্যক্তির বয়সই ৭০ বছরের ঘরে এবং দেশের দুটি আলাদা এলাকায় তাদের মৃত্যু হয়েছে।

তাদের একজন কেরোসিন তেল নিতে অপেক্ষায় ছিলেন, আরেকজন পেট্রোলের লাইনে ছিলেন বলে জানান কলম্বোর পুলিশের মুখপাত্র নলিন থালদুয়া।

তিনি বলেন, “মৃতদের একজন থ্রিহুইলার চালক ছিলেন। ৭০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি ডায়াবেটিস ও হৃদরোগে ভুগছিলেন। দ্বিতীয়জনের বয়স ৭২ বছর। দুজনেই জ্বালানি তেলের জন্য প্রায় চার ঘণ্টা দাঁড়িয়ে ছিলেন।”

দাম বাড়ায় নিম্ন আয়ের পরিবারগুলোর রান্নার জন্য গ্যাসের পরিবর্তে কেরোসিন তেলের দিকে ঝুঁকে পড়ায় এর ব্যবহারও বেড়ে গেছে। রোববার দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সরবরাহকারী লাউফ গ্যাস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা তাদের সাড়ে ১২ কেজির সিলিন্ডারের দাম ১ হাজার ৩৫৯ রুপি বাড়িয়েছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.